বাংলাদেশের ঢাকায় বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেওয়া কিসের ইঙ্গিত দিচ্ছে?

৩২,১২৬

বাংলাদেশে দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছর ঢাকায় বিএনপিকে সমাবেশ করতে দেয়ার পর- এটি বিএনপিকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে আরও সুযোগ দেয়ার সূচনা কি-না তা নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়েছে।

যদিও বিশ্লেষকদের মধ্যে এ নিয়ে পরস্পর বিরোধী মতামত যাওয়া গেছে। তবে বিএনপি বলছে, জনমত ও আন্তর্জাতিক চাপেই সরকার তাদেরকে এ সুযোগ দিয়েছে।

বিএনপি ঢাকায় সর্বশেষ সমাবেশ করেছিলো ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে। এরপর নানা ইস্যুতে বেশ কয়েকবার সমাবেশের অনুমতি চাইলেও পুলিশের পক্ষ থেকে অনুমতি মেলেনি।

সর্বশেষ গত ৮ই ফেব্রুয়ারি দলটির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া আদালতে সাজা পেয়ে কারাগারে যাওয়ার পর অনেকবার আবেদন করেও সমাবেশের অনুমতি পায়নি বিএনপি।

দলীয় নেতারাও শুক্রবারের নয়া পল্টনের সমাবেশের অনুমতি নিয়ে সংশয়ে ছিলেন। তবে অবশেষে অনুমতি পেয়ে সমাবেশ করতে পারায় কথাবার্তা হচ্ছে যে এটা কি তাহলে বিএনপিকে নির্বাচনে আনার জন্যে আরো রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সুযোগ দেওয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছে?

ওই সমাবেশের একদিন পরেই ঢাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গণসম্বর্ধনা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

তবে বিতর্ক যাই হোক, বিএনপিকে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়াকে ইতিবাচক লক্ষণ হিসেবে উল্লেখ করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ” একটা ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে আওয়ামী লীগও প্রস্তুত হচ্ছে যে বিএনপিকে কিছুটা জায়গা দিতে হবে। কারণ আন্তর্জাতিক মহলের পাশাপাশি দেশের ভেতরেও উদ্বেগ আছে নির্বাচন যেনো স্বচ্ছ হয়। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বও জানেন অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন না হলে দেশের ভাবমূর্তিতে চিড় ধরবে। আমার ধারণা সামনে বিএনপি আরও একটু বেশি জায়গা পাবে।”

মন্তব্য
Loading...